ইতালিতে প্রবেশের অপেক্ষায় হাজারও বাংলাদেশি

1

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস পরীক্ষার জাল কাগজপত্র থাকার অভিযোগে ইতালি সরকার বাংলাদেশ থেকে যাওয়া সব ফ্লাইটের ওপর নিষেধাজ্ঞা আগামী ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়িয়েছে। এর ফলে গত প্রায় চার মাস ধরে বাংলাদেশে আটকা পড়ে আছেন কয়েক হাজার বাংলাদেশি। যারা ইতালিতে তাদের বাসস্থান বা কর্মস্থলে ফেরার পূর্ণপ্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ মিশনসহ নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা দেশগুলোর তরফে ইতালির পররাষ্ট্র দপ্তরে সকাল বিকাল যোগোযাগ-তদবির অব্যাহত রয়েছে নিষেধাজ্ঞা শিথিলের জন্য। কূটনৈতিক সূত্রে সর্বশেষ যে তথ্য মিলেছে তাতে বিধি নিষেধ শিথিলের আভাস মিলেছে। রোমের বাংলাদেশ মিশন এবং মিলানের কনস্যুলেটের দায়িত্বশীল সূত্র মানবজমিনকে জানিয়েছে, করোনা টেস্টে বাংলাদেশিসহ নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা দেশগুলোর নাগরিকদের ৯০-৯৫ ভাগের নেগেটিভ রিপোর্ট আসার প্রেক্ষিতে বিদ্যমান নিষেধাজ্ঞা চলতি আগস্টের মধ্যেই তুলে নেয়ার স্পষ্ট ইঙ্গিত মিলেছে। এটা ১০ই আগস্ট থেকে সর্বোচ্চ ৩১শে আগস্টের মধ্যে নামিয়ে আনার প্রস্তাব রয়েছে, দ্রুততম সময়ের মধ্যে তারিখ চূড়ান্ত করে নিষেধাজ্ঞা মেয়াদ কমিয়ে আনা হতে পারে। উল্লেখ্য, গত ৬ জুলাই ইতালির রোমে অবতরণ করা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক যাত্রীর কোভিড-১৯ শনাক্ত হওয়ার পর ৭ জুলাই এক সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল দেশটি, যা এখনও বলবত আছে।

করোনা শনাক্ত হওয়া ওই যাত্রীদের কাছে ‘কোভিড-১৯ নেগেটিভ’ এবং ‘ভ্রমণের জন্য নিরাপদ’ মর্মে জাল কাগজপত্র ছিল। ৮ জুলাই ১৫১ বাংলাদেশি যাত্রীকে দেশটিতে প্রবেশ করতে দেয়নি ইতালি। বাংলাদেশ থেকে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ট্রানজিট ফ্লাইটে ইতালি যাওয়া ওই যাত্রীদের পুনরায় ঢাকায় ফেরত পাঠানো হয়। পরবর্তীতে কাতার এয়ারওয়েজের দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইতালির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে বাংলাদেশ থেকে ইতালিগামী সব ফ্লাইট/যাত্রী নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘৮ জুলাই থেকে শুরু করে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত যে কোনো দেশের নাগরিক কিংবা যে কোনো দেশ হয়ে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া কোনো ফ্লাইট ইতালিতে অবতরণের অনুমতি পাবে না।এর আগে জুনে বাংলাদেশ থেকে চীন জাপান ও কোরিয়াতে বিশেষ ফ্লাইট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। সর্বশেষ বাংলাদেশসহ ৭ দেশের নাগরিকের সরাসরি কুয়েতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here