করোনা আক্রান্ত দম্পতির বিমান ভ্রমণ, গ্রেপ্তার

3

অনলাইন ডেস্ক : করোনা ভাইরাস পজেটিভ হওয়া সত্ত্বেও বিমানে আরোহন করার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের হাইওয়াইয়ের এক দম্পতিকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। তাদেরকে গ্রেপ্তার করে রাখা হয়েছে আইসোলেশনে। তারা সান ফ্রান্সিসকো থেকে কাউইয়াই’য়ে যাচ্ছিলেন ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে করে। স্থানীয় এবিসির মতে, বিমানে আরোহনের আগে অর্থাৎ প্রি-ট্রাভেল স্ক্রিনিংয়ে তাদের করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে। কিন্তু সে তথ্য লুকিয়ে তারা ওই ফ্লাইটে আরোহন করেন। ইউনাইটেড ইয়ারলাইন্সের বর্তমান গাইডলাইন্সের মতে, যেসব যাত্রীর করোনা পজেটিভ ধরা পড়বে তারা করোনা শনাক্তের পরবর্তী ১০ দিনের মধ্যে এই বিমান সংস্থার ফ্লাইটে আরোহন করতে পারবেন না। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কাস্টমারকে অবশ্যই পরপর দুটি করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে, যে রিপোর্ট সফরের কমপক্ষে ২৪ ঘন্টা আগে করা হয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য হিল।

বিমান সংস্থাটির এক মুখপাত্র দ্য হিল’কে বুধবার বলেছেন, তারা বিষয়টি তদন্ত করছেন এবং ওই দম্পতি ভবিষ্যতে ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সে ভ্রমণ করতে পারবেন কিনা তা যাচাই করে দেখবেন। কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আমাদের কর্মচারী ও কাস্টমারদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা আমাদের অগ্রাধিকারে। এ জন্য আমরা বিভিন্ন রকম পদক্ষেপ নিয়েছি। এর মধ্যে সবার মুখে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ফ্লাইটে আরোহন করার আগে ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের সব কাস্টমারকে অবশ্যই ‘রেডি টু ফ্লাই’ চেকলিস্ট অনুসরণ করতে হবে। তাতে বলা হয়েছে, গত ১৪ দিনে তাদের কোনো করোনা ধরা পড়েনি। ওদিকে কাউইয়াই-এর মেয়র ডেরেক কাওয়াকামি নিশ্চিত করেছেন যে, করোনা আক্রান্ত হয়ে সফর করা ওই দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বেপরোয়াভাবে অন্যদের বিপদে ফেলার মতো সেকেন্ড-ডিগ্রি অভিযোগ আনা হচ্ছে। বর্তমানে তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here