কাঁচা মরিচের ঝাঁজ না কমতেই, বেড়েছে পিয়াজের ঝাঁজ

1

অনলাইন ডেস্ক : শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার খুচরা বাজারে কাঁচা মরিচের ঝাঁজ না কমতেই, বেড়েছে পেয়াজের ঝাঁজ। হঠাৎ করেই উপজেলার সব বাজারে পেয়াজের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। দুই সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিগুণেরও বেশি পিয়াজের দাম। কয়েকদিন পূর্বেও যে পেয়াজ বিক্রি হয়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজিতে, সে পেয়াজ গতকাল বিক্রি হয়েছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে। হঠাৎ করে পেয়াজের এ রকম অগ্নিমূল্যে বেকায়দায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ। এদিকে সবজির বাজারে মূল্য স্থিতিশীল থাকলেও লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছেনা করলার দামের। কয়েক সপ্তাহ ধরে করলার দামের এ ঊর্ধ্বগতি রোধ করা যাচ্ছেনা। একমাস পূর্বেও করলার দাম ছিল কেজি ৩০-৪০ টাকা, গতকাল খুচরা বাজারে করলার দাম ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

অন্যদিকে একই সময়ে অতিবৃষ্টি ও জলাবদ্ধতার কারণে কাঁচা মরিচের দাম এক লাফে ৩০ টাকা থেকে ২শ’ টাকায় উঠে গেছে। এরপর থেকে অদ্যবধি কাঁচা মরিচের দামের পারদ আর নামছে না। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের জনৈক পাইকারী পেয়াজ ব্যবসায়ী জানান, বেশ কয়েকদিন ধরেই পিয়াজের দাম উঠানামা করছে। গত সপ্তাহে পেয়াজের দাম কিছুটা কমলেও গত দুদিন থেকে তা আবার বেড়েছে। তিনি আরো জানান, আমদানিস্থলে ৩৮ টাকা কেজি দরে ভারতীয় পিয়াজ কিনেছেন তিনি। সেই পিয়াজ হবিগঞ্জ এসে মূল্য হবে ৪৩ টাকা। গতকাল শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা সদরের কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, খুচরা দোকানিরা মানভেদে পেয়াজ ৪৫/৫০ টাকায় বিক্রি করছেন। বাজারে আসা ক্রেতা বাবুল মিয়া জানান, হঠাৎ করেই পেয়াজের ঝাঁজ বেড়ে গেছে। ২৫ টাকা কেজির পিয়াজ এক লাফে ৫০ টাকায়। তিনি আরো বলেন, করলার দামের বেলায়ও তাই, ৪০ টাকার করলা ৮০ টাকায় উঠেছে আর নামছেনা। সাধারণ ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা সবাই অনতিবিলম্বে বাজারে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নজরদারি ও সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here