কাতারে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি: বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার ৬৫০০ শ্রমিকের মৃত্যু

3

অনলাইন ডেস্ক : দশ বছর আগে ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ব পেয়েছে কাতার। এরপর শীর্ষ পর্যায়ের ফুটবলে নাম করতে না পারা কাতার আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন স্টেডিয়ামে নির্মাণ ও সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিতে জোর প্রস্তুতি চালায়। ওই স্টেডিয়াম নির্মাণসহ বিশ্বকাপের সামগ্রিক প্রস্তুতিতে দশ বছরে বাংলাদেশ-ভারত-নেপালসহ দক্ষিণ এশিয়ার অন্তত সাড়ে ছয় হাজার শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম ‘দ্য গার্ডিয়ান’ তাদের এক বিশেষ প্রতিবেদনে এমনই দাবি করেছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বকাপের প্রস্তুতির কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের মধ্যে প্রতি সপ্তাহে ১২জন করে বিদেশি শ্রমিক মারা গেছেন। এর আগে, পেট্রো ডলারের ঝনঝনানি দেখিয়ে কাতার বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ব দখল করেছে বলেও অভিযোগ আছে।

বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল এবং শ্রীলংকা সরকারের সূত্র থেকে তথ্য নিয়ে গার্ডিয়ান দাবি করেছে, ২০১০-২০২০ পর্যন্ত এই চার দেশের ৫ হাজার ৯২৭ জন শ্রমিক মারা গেছেন। এর মধ্যে ভারতের সর্বোচ্চ দুই হাজার ৭১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। নেপালের এক হাজার ৬৪১ জন এবং বাংলাদেশের এক হাজার এক হাজার ১৮ জন শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

শ্রীলংকার ৫৫৭ জন শ্রমিকের মৃত্যুর কথা জানতে পেরেছে সংবাদ মাধ্যম গার্ডিয়ান। পাকিস্তান সরকারের থেকে তারা সরাসরি তথ্য পায়নি। তবে কাতারে অবস্থিত পাকিস্তান দূতাবাস থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এই সময়ে পাকিস্তানের শ্রমিক মারা গেছে অন্তত ৮২৪ জন।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, শ্রমিকদের এই মৃত্যুর সংখ্যা প্রকৃত পরিসংখ্যানের চেয়ে অনেক বেশি। কারণ কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বপ্ন পূরণের প্রস্তুতির জন্য ফিলিপাইন এবং কেনিয়ার অনেক শ্রমিক নিযুক্ত ছিলেন। কিন্তু তাদের তথ্য ঠিক মতো পাওয়া যায়নি। এমনকি এই সংখ্যাতত্বে ২০২০ সালে মৃত শ্রমিকদের সংখ্যাও অন্তভূক্ত করা হয়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here