দ্বিতীয় উপন্যাসের সফলতা উদযাপন করছেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি লেখক

2

অদিতি খান্না, যুক্তরাজ্য : ব্রিটেনের লেইচাস্টার শহরে গৃহহীনতার প্রেক্ষাপটে লেখা নিজের দ্বিতীয় উপন্যাসের জন্য ব্যাপক প্রশংসা পাচ্ছেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি লেখক মাসুদা সোনাথ। কয়েক মাসের গবেষণার পর তার লেখা এই উপন্যাসের নানা পর্যালোচনা প্রকাশ পেতে শুরু করেছে।

লেইচাস্টারের একটি রাষ্ট্রীয় মালিকানার আবাসন প্রকল্পে বড় হয়েছেন মাসুদা সোনাথ। ওই শহরের ডে মন্টফ্রন্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্য ও শিক্ষা অধ্যয়নে পড়াশুনা করেছেন তিনি। ২০১৭ সালে প্রকাশিত হয় তার প্রথম উপন্যাস ‘দ্য থিংস: উই থট, উই নো’। সম্প্রতি ‘হাউ টু ফাইন্ড হোম’ নামে প্রকাশিত হয়েছে মাসুদা সোনাথের দ্বিতীয় উপন্যাস। নটিংহাম থেকে আসা এক গৃহহীন কিশোরীর গল্প বলা হয়েছে এতে।

দ্বিতীয় উপন্যাস লেখার আগে গৃহহীনদের সঙ্গে সময় কাটিয়ে তাদের গল্প শুনেছেন লেইচাস্টারে বসবাসকারী এই লেখক। আর উপলব্ধি করেছেন যে কেউ যে কোনও সময়েই গৃহহীন হয়ে পড়তে পারেন। তিনি বলেন, জীবনে সামান্য কিছু খারাপ ঘটে যেতে পারে। আর তাতেই আপনার সব কিছু সব কিছু শেষ করে দিয়ে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে দিতে পারে।

উপন্যাস লেখার আগে ব্যাপক গবেষণার পাশাপাশি নিউ ফিউচার প্রজেক্ট নামে একটি সংস্থায় ছয় সপ্তাহের একটি প্রশিক্ষণে অংশ নেন মাসুদা সোনাথ। লেইচেস্টারের এই দাতব্য সংস্থাটি যৌনকর্মীদের সহায়তা দেয়। এছাড়াও গৃহহীনদের খাবার সরবরাহ করা একটি প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেছেন মাসুদা।

তিনি বলেন, তাদের নিয়ে গবেষণা করা আমার জন্য সত্যিকার অর্থেই গুরুত্বপূর্ণ ছিল কেননা এই গৃহহীন সম্প্রদায় এরইমধ্যে ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে। মাসুদা বলেন, আমি বলতে চাই আমার লেখালেখি খুবই শ্রমিক শ্রেণী ঘনিষ্ঠ। আর আমি এমন সব মানুষের ওপর মনোযোগ রাখতে চাই যাদেরকে সাধারণত সাহিত্যে তুলে ধরা হয়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here