ব্যাংকের বিলাসী খরচে লাগাম টানল বাংলাদেশ ব্যাংক

2

অনলাইন ডেস্ক : ব্যাংকগুলোর বিলাসী খরচে লাগাম টানল বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে কোনো ব্যাংক ৫০ লাখ টাকার বেশি দামের সেডান (প্রাইভেট কার) এবং এক কোটি টাকার বেশি দামের এসইউভি (জিপ) কিনতে পারবে না। ব্যাংকের চেয়ারম্যান ছাড়া অন্য পরিচালকেরা ব্যাংকের টাকায় কেনা গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন না। মূলত সুদের হার কমানোর অংশ হিসেবে নতুন করে আজ মঙ্গলবার এক প্রজ্ঞাপন জারি করে এই বিধিনিষেধ আরোপ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

প্রজ্ঞাপনে ব্যাংকগুলোর পরিচালন ব্যয় কমাতে জমি কেনা, অফিস ভাড়া, সাজসজ্জা এবং পরিচালনা পর্ষদের সভাসহ অন্য যে কোনো সভা আয়োজনের ক্ষেত্রেও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। শহরে ব্যাংকের নতুন শাখার ক্ষেত্রে ৬ হাজার বর্গফুট এবং পল্লি এলাকায় ৩ হাজার বর্গফুটের বেশি জায়গা ব্যবহার করা যাবে না বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, অপ্রয়োজনীয় ব্যয় পরিহার ব্যাংকের আয় বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। একই সঙ্গে ব্যবসার প্রসারে সুদ/চার্জ/ফি ইত্যাদি প্রতিযোগিতামূলক করার সক্ষমতা বাড়ায়। সম্প্রতি কোনো কোনো ব্যাংকে উচ্চ ব্যয় নির্বাহের প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রজ্ঞাপনে নির্দেশনা দেওয়া হয়, অন্য কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে লিজ ফাইনান্সিং সুবিধা গ্রহণ করে কোনো মোটরগাড়ি সংগ্রহ করা যাবে না। দেশীয়ভাবে সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে গাড়ি কেনার মাধ্যমে এ খাতে ব্যয়ের বার্ষিক প্রবৃদ্ধি শতকরা ১০ ভাগের মধ্যে সীমিত রাখতে হবে। সকল যানবাহন অন্তত পাঁচ বছর ব্যবহারের পর প্রতিস্থাপন করতে হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, শাখা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে প্রতি বর্গফুটের জন্য ১ হাজার ২৫০ টাকার বেশি ব্যয় করা যাবে না। বিদ্যুৎ ব্যবহার, আসবাবপত্র ও অন্যান্য সরঞ্জাম কেনার ক্ষেত্রেও বিলাসী ব্যয় পরিহার করতে হবে। সভা অনুষ্ঠান, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট, ও অন্যান্য ক্ষেত্রে ব্যয় কমাতে হবে। ভ্রমণ ও যাতায়াত ভাতা, আপ্যায়ন খরচ, স্টেশনারি এবং বিবিধ খরচের নামে অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমানোরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here