যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভে ফের গুলি, নিহত ২

0

অনলাইন ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন রাজ্যে পুলিশের গুলিতে এক কৃষ্ণাঙ্গ আহত হওয়ার প্রতিবাদে চলমান বিক্ষোভে ফের গুলি চালানো হয়েছে। এতে দুই বিক্ষোভকারী নিহত এবং একজন আহত হয়েছেন।

বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটেছে কেনোসা শহরে। খবর বিবিসির।

কেনোসা শহরে তিন দিন ধরে চলছে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ। রোববার রাতে পুলিশের গুলিতে আহত হন জেকব ব্লেক নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক। সতর্কতা উপেক্ষা করে গাড়ি চালানোর সময় তাকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি ছোড়ে পুলিশ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয় গুলিবিদ্ধ জেকবকে। এর পরই বিক্ষোভ শুরু হয়। রাতেই স্থানীয় পুলিশের প্রধান কার্যালয়ের সামনে বর্নবাদবিরোধী বিক্ষোভ হয়।

পরদিন সোমবার শহরজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভের সময় ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভকারীরা। স্থাপনাগুলোর সুরক্ষা নিশ্চিতে পুলিশকে সহায়তা করতে দুই শতাধিক ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করেন উইসকনসিন গভর্নর টোনি এভার্স। মঙ্গলবার রাত ৮টা থেকে শহরে জারি করা হয় কারফিউ।

কারফিউ উপেক্ষা করেই বুধবার চলছিল বিক্ষোভ। এ সময় বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, একটি গ্যাস স্টেশনে পাহারারত এক ব্যক্তি বিক্ষোভকারীদের হামলার মুখে রাইফেল দিয়ে গুলি চালায়। ওই ব্যক্তি কোনো নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্য কিনা জানা যায়নি।

অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, রাইফেল হাতে থাকা এক ব্যক্তিকে তাড়া করছে কিছু মানুষ। এক পর্যায়ে ওই ব্যক্তি পড়ে যায় এবং জমায়েত হওয়া লোকদের লক্ষ্য করে একাধিক গুলি ছুড়ে।

কে বা কারা বিক্ষোভে গুলি চালিয়েছে, তা পরিষ্কার না করলেও কেনোসা পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলির ঘটনায় দুইজন নিহত এবং একজন আহত হয়েছে। আহতজনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক নয়।’ বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, পুলিশ ওই গুলির ঘটনা তদন্ত করে দেখছে।

গত ২৫ মে মিনিয়েপোলিসে পুলিশের হেফাজতে জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি নিহতের পর দেশটিজুড়ে তখন ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। ওই বিক্ষোভ যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে। তা সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে পুলিশের গুলিতে নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ হতাহত হওয়ার ঘটনা অব্যাহত রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here