রিয়ার বাড়িতে তল্লাশি

4

বিনোদন ডেস্ক : শুক্রবার সাতসকালে তল্লাশির জন্য রিয়া চক্রবর্তীর মুম্বইয়ের বাড়িতে হানা দিল নারকোটিক্স বিভাগের এক টিম। অন্যদিকে, সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডার বাড়িতেও আরেকটি টিম পৌঁছবে বলে জানা গিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে। তাহলে কি বিপদ ঘনিয়ে এল রিয়া এবং তার ভাই সৌভিকের? নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর এক আধিকারিক জানিয়েছেন, শুধুমাত্র তদন্তের খাতিরেই রিয়া ও সৌভিক চক্রবর্তী এবং স্যামুয়েল মিরান্ডার বাড়িতে তল্লাশি। উল্লেখ্য, এই স্যামুয়েলকেই গতবছর মে মাসে সুশান্তের বাড়ির ম্যানেজার হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন রিয়া। সৌভিক এবং রিয়ার সঙ্গে তার সম্পর্ক যে বেশ ভাল ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের চ্যাটের সূত্র ধরে তা দিনের আলোর মতো স্পষ্ট। এমনকী, সৌভিক ও স্যামুয়েলের সঙ্গে মাদক কারবারীদের রীতিমতো ভাল যোগাযোগ ছিল বলেও জানা গিয়েছে। সুশান্ত মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হলেও মাদকচক্রে জড়িত থাকার কারণে যে বেশ ভুগতে হতে পারে রিয়া ও তার ভাই-সহ স্যামুয়েলকে, তা সাফ বোঝা যাচ্ছে। সুশান্ত মামলায় মাদকে জড়িত ধৃত আবদুল বসিত, জায়েদ ভিলাত্রাকে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হেফাজতে নিয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো।

মাদককাণ্ডে ধৃত এই দুজনকেই বৃহস্পতিবার আদালতে পেশ করা হয়। জানা যাচ্ছে, জেরার মুখে তারা দুজনেই সৌভিক চক্রবর্তী ও মিরান্ডার সঙ্গে তাদের যোগাযোগের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। এমনকী, সুশান্তের মৃত্যুর ৩ দিনের মাথাতেও নাকি ওই দুজনের নির্দেশে ধৃতদের মধ্যে একজন ১০ গ্রাম মাদক পৌঁছে দিয়েছিলেন কোথাও। ফোন নাম্বার লোকেশন ট্র্যাক করেও সেই প্রমাণ মিলেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here