সিডনিতে বাড়ি কেনার খরচ কমল ২০ লাখ টাকা

1

কাউসার খান, সিডনি (অস্ট্রেলিয়া) থেকে : করোনাভাইরাস সংকটের কথা বিবেচনায় রেখে অস্ট্রেলিয়ায় নতুন বাড়ি কেনার খরচ কমিয়ে আনার প্রকল্প হাতে নিয়েছে দেশটির রাজ্য সরকার। অস্ট্রেলিয়ার সিডনির রাজ্য নিউ সাউথ ওয়েলসে (এনএসডব্লিউ) নতুন বাড়ি কেনার ওপর সরকারি কর সাময়িকভাবে না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আগস্ট মাসের ১ তারিখ থেকে নতুন এই নিয়মে ৮ লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার মূল্যের নিচে নতুন বাড়ি কিনলে সরকারি স্ট্যাম্প ডিউটি প্রদান করতে হবে না। এ সুবিধা পাবেন শুধুমাত্র প্রথমবারের মতো যাঁরা বাড়ি কিনবেন তাঁরাই। এ ছাড়া তাঁদের, আবেদন সাপেক্ষে আরও প্রায় ১০ হাজার ডলার পর্যন্ত দেবে রাজ্য সরকার প্রণোদনা হিসেবে। সব মিলিয়ে এই রাজ্যে নতুন বাড়ি কিনলে প্রায় ৩২ হাজার অস্ট্রেলীয় ডলার যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত খরচা কম হবে নতুন ক্রেতাদের।

রাজ্যের নির্মাণ খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও গতিশীল রাখার লক্ষ্যে এ প্রকল্প গ্রহণ করেছে এনএসডব্লিউ রাজ্য সরকার। রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী গ্ল্যাডিস বেরেজিক্লিয়ান গতকাল সোমবার নতুন প্রকল্পটির ঘোষণা দেন। নতুন প্রকল্পটির আওতায় রাজ্যটিতে প্রায় ৬ হাজার নতুন ক্রেতা সুবিধাভোগী হতে পারে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ায় ঘরবাড়ি বা জমিজমা কেনার ৩০ দিনের মধ্যে ক্রয়কৃত সম্পদের মূল্যের ওপর ভিত্তি করে সরকারকে কর পরিশোধ করতে হয়। অস্ট্রেলিয়ায় এই করকে ‘স্ট্যাম্প ডিউটি’ বলা হয়। অনেক দিন ধরেই অস্ট্রেলিয়ার মানুষের গড় আয়ের তুলনায় দেশটির ঘরবাড়ি ও জমিজমার মূল্য অনেক বেশি। দেশটিতে ঘরবাড়ি বা জমি কিনতে যে মূল্য পরিশোধ করতে হয় তাতে মূলত আরও বেশ কিছু অতিরিক্ত অর্থের একটি এই স্ট্যাম্প ডিউটি। অনেকটা উল্লেখযোগ্য হারেই অস্ট্রেলিয়ার রাজ্যভেদে এই প্রদেয় করের হার ভিন্ন রকম। তবে গড়ে প্রায় ২৬ হাজার অস্ট্রেলিয়ান ডলার পর্যন্ত স্ট্যাম্প ডিউটি প্রদান করতে হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here