সৌরভের হৃৎপিণ্ডে ব্লক ; সঠিক সময়ে হাসপাতালে গিয়ে রক্ষা

5

স্পোর্টস ডেস্ক : হুট করেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন সাবেক ক্রিকেট সুপারস্টার সৌরভ গাঙ্গুলী। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বর্তমান প্রেসিডেন্ট এখন হাসপাতালে ভর্তি। তার হৃদ্‌পিণ্ডে রক্ত সরবরাহকারী তিনটি ধমনীতে ‘ব্লকেজ’ ধরা পড়েছে। তার মধ্যে একটিতে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করে ‘স্টেন্ট’ বসানো হয়েছে। বাকি দুটিতেও ‘স্টেন্ট’ বসানো হবে বলে হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতের দৈনিক আনন্দবাজার জানিয়েছে। বর্তমানে এই সুপারস্টার বিপদমুক্ত আছেন।

আজ শনিবার সকালে বাড়ির জিমে ট্রেডমিলে হাঁটার সময় বুকে ব্যথা হওয়ায় আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়েন সৌরভ। তিনি নিজেই দক্ষিণ কলকাতার আলিপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ফোন করেন। তাকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি হতে বলা হয়। সৌরভ তাই করেন। এখন আরও অন্তত চার-পাঁচদিন তাকে হাসপাতালে থাকতে হবে। চিকিৎসকেরা বলেন, এই ধরনের অসুস্থতায় ‘গোল্ডেন আওয়ার’ গুরুত্বপূর্ণ। চিকিৎসাবিজ্ঞানের পরিভাষায় ‘গোল্ডেন আওয়ার’ হলো অসুস্থতার পরের ৬ ঘণ্টা।

অনেকেই মৃদু হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হলে তা বুঝতে পারেন না কিংবা পাত্তা দেন না। অনেক সময়ে মনে করেন, গ্যাসের সমস্যা হয়েছে। ফলে অনেকেই অ্যান্টিসড বা ওই ধরনের ওষুধ খেয়ে নেন। আসল অসুস্থার কোনো চিকিৎসা হয় না। ৬ ঘণ্টা ওই অবস্থায় থাকলে কিন্তু বিপদ অবশ্যম্ভাবী। তবে ওই অসুস্থতার ৬ ঘন্টার মধ্যে চিকিৎসা শুরু হলে বড় বিপদ এড়ানো যায়। সৌরভের ক্ষেত্রে সেটাই হয়েছে। সৌরভ নিজেই হাসপাতালে ফোন করেছিলেন বলে বড় বিপদ এড়ানো গেছে। ফলে সৌরভের অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল। তার রক্তচাপ এবং নাড়ির গতি স্বাভাবিক আছে।

সৌরভের চিকিৎসায় পাঁচজনের একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠিত হয়েছে। বোর্ডের সদস্য আফতাব খান বলেছেন, ‘উনি একটা মৃদু হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। কিন্তু উনি নিজেই ফোন করে হাসপাতালে চলে আসেন। তাই বড় বিপদ এড়ানো গিয়েছে। তাকে লোকাল অ্যানাস্থেশিয়া দিয়ে স্টেন্ট বসানো হয়েছে। উনি সজ্ঞান এবং সচেতন আছেন। আমাদের সঙ্গে কথাও বলেছেন। এখন বাইপাস সার্জারির কথা আমরা ভাবছি না। আমরা স্টেন্ট বসানোটাই উপযুক্ত মনে করেছি। আমরা আপাতত তাকে পুরোপুরি সুস্থ করে তুলতে চাই।’

চিকিৎকেরা জানিয়েছেন, সৌরভের তিনটি ধমনী ‘ব্লক’ হয়ে গিয়েছিল। তার মধ্যে একটি ধমনীতে প্রায় ৯০ শতাংশ ব্লকেজ ছিল। সেখান থেকেই সমস্যার শুরু বলে চিকিৎসকেরা মনে করছেন। এদিন সৌরভ যখন হাসপাতালে ভর্তি হন, তখন তার নাড়ির বেগ ছিল মিনিটে ৭০। রক্তচাপ ছিল ১৩০/৮০। শরীরের অন্যান্য পরীক্ষার ফল স্বাভাবিক এসেছে বলেই হাসপাতালের মেডিক্যাল বুলেটিনে জানানো হয়েছে। স্ত্রী ডোনা এবং কন্যা সানা সার্বক্ষণিক সৌরভের পাশে আছেন। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারও নিয়মিত খোঁজ রাখছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here