হাজীর বিরিয়ানি বাখরখানির স্বাদ নিলেন মিলার

10

অনলাইন ডেস্ক : ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার হাজীর বিরিয়ানি ও বাখরখানির স্বাদ নিলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার। পুরান ঢাকা ঘুরতে গিয়ে এ দুটি খাবার খেয়ে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত। গতকাল সকাল ৯টার দিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন থেকে মেয়র সাঈদ খোকনকে নিয়ে নগরীর ঐতিহ্যবাহী বেশকিছু স্থান বেড়িয়ে তিনি হাজীর বিরিয়ানি আর বাখরখানি খেয়ে দেখেন। আর এই নগর ভ্রমণে সঙ্গী হয়েছিলেন তার সফরসঙ্গী ছাড়াও বেশকিছু গণমাধ্যমকর্মী। শুধু খাবার নয় মার্কিন রাষ্ট্রদূত জেনেছেন পুরান ঢাকার ইতিহাস-ঐহিত্য সম্পর্কেও।

১৯৩৯ সাল থেকে হাজীর বিরিয়ানির যাত্রা শুরু। পুরান ঢাকার বাসিন্দা হাজী মুহাম্মদ হোসেনের হাতেই হাজীর বিরিয়ানির জন্ম। তারপর বংশ পরম্পরায় এই ব্যবসা ধরে রেখেছে হাজী হোসেনের উত্তরাধিকারীরা।

হাজী মুহাম্মদ হোসেনের মৃত্যুর পর এই ব্যবসার হাল ধরেন তার পুত্র হাজী গোলাম হোসেন। ২০০৬ সালে হাজী গোলাম হোসেন মারা যান। তারপর তার পুত্র হাজী মুহাম্মদ শাহেদ হোসেন এই ব্যবসার হাল ধরেন। এখন এই ব্যবসার দেখাশোনা করেন হাজী মুহাম্মদ বাপী, যিনি হাজী মুহাম্মদ হোসেনের নাতি। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায় সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পুরান ঢাকার ইতিহাস ঐতিহ্য সম্পর্কে জানতে এ সফর করছেন। ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন রবার্ট মিলারকে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী নিদর্শন ঘুরে দেখান। পাশাপাশি হাজির বিরিয়ানি, বাখরখানিসহ ঐতিহ্যবাহী সব খাবারে আপ্যায়িত করেন।

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করবে: রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার বলেছেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করবে। বাংলাদেশে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের কমিউনিকেবল ডিজিজ ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টের মাধ্যমে ডেঙ্গু প্রতিরোধে ঢাকা দক্ষিণ সিটিকে সব ধরণের সহযোগিতা প্রদান করা হবে বলেও জানান তিনি। গতকাল সকালে মিলার পুরান ঢাকার নাজিরাবাজার, কাজী আলাউদ্দিন রোড ও সংলগ্ন এলাকা পরিদর্শন করেন ও ঐতিহ্যবাহী পুরান ঢাকার খাবার খাওয়া শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে ব্রিফিংকালে এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

তিনি ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনমূলক লিফলেট এলাকাবাসীর মাঝে বিতরণ করেন। রবার্ট মিলার বলেন, বাংলাদেশ আমাদের ছোট্ট একটা অফিস আছে। যেখানে বাংলাদেশে ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করে। সেই সঙ্গে ঢাকা সিটির উন্নয়নে কাজ করে। কিভাবে মানুষকে ডেঙ্গু থেকে রক্ষা করা যায় ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রসঙ্গে আলাপ করেছি। এ সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের পাশে থাকবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here