‘২০ বছর ধরে ইরানী বিজ্ঞানীকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে’

2

অনলাইন ডেস্ক : ইরানের বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসীন ফখরিজাদেহকে গত ২০ বছর ধরে হত্যা করার চেষ্টা করে এসেছে একটি পক্ষ। দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তার ওপর সম্ভাব্য হামলা এবং এ রকম হামলার সম্ভাব্য স্থানগুলোর ব্যাপারে পূর্বাভাস দিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি। গতকাল সোমবার (৩০ নভেম্বর) তেহরানের অদূরে বিজ্ঞানী ফখরিজাদেহের জানাযার নামাজে অংশ নেয়ার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

আলী শামখানি বলেন, দুঃখজনকভাবে ফখরিজাদেহের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কিছু শিথিলতা এসেছিল এবং শত্রুরা সেই সুযোগের সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার করেছে। তবে ফাখরিজাদেহের মতো বিজ্ঞানীর সংখ্যা ইরানে আরো আছে বলেও জানান তিনি। একজন ফাখরিজাদেহকে হত্যা করলে দেশে শত শত ফখরিজাদেহর জন্ম হবে।

ইরানের এই সর্বোচ্চ নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেন, ইরানের শত্রুরা ফখরিজাদেহের শিখিয়ে যাওয়া জ্ঞান ও প্রযুক্তি এদেশের তরুণ বিজ্ঞানীদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে পারবে না।

বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের গবেষণা ও উদ্ভাবন বিষয়ক সংস্থার চেয়ারম্যান মোহসীন ফখরিজাদেহ গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হন। রাজধানী তেহরানের পূর্বাঞ্চলে তার কাছাকাছি অন্য একটি গাড়ি থেকে রিমোট কন্ট্রোলড বন্দুকের মাধ্যমে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামিনি এবং অন্যান্য নেতারা। শুক্রবার একটি বুলেটপ্রুফ গাড়িতে করে তার স্ত্রীকে নিয়ে কোথাও যাচ্ছিলেন। সে সময় নিরাপত্তাবাহিনীর তিনটি গাড়ি তাদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিল। এসময় তার গাড়িতে একটি বুলেট লাগার শব্দ হলে তা দেখতে তিনি বের হন। এরপরেই একটি রিমোট কন্ট্রোলড বন্দুক থেকে গুলি ছোড়া হয়।

জানা যায়, ফখরিজাদেহের গাড়ি থেকে ১৫০ মিটার দূর থেকে তাকে গুলি করা হয়েছিল। তাকে অন্তত ৩টি গুলি করা হয়। এসময় ফখরিজাদেহের দেহরক্ষীকেও গুলি করা হয়। তাদের উপর প্রায় ৩ মিনিট হামলা হয়েছে।

এই ঘটনার পর খামেনি টুইট বার্তায় বলেন, ইরানী কর্মকর্তারা এই ‘হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করবে এবং অপরাধীদের শাস্তি দিবে’।

এর আগে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি শনিবার বলেন, ইরান যথাসময়ে এই হামলার জবাব দেবে। তিনি এই হামলার জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করেছেন।

রুহানি আরো বলেন, ইহুদিবাদীদের পাতানো ফাঁদে পা দেয়ার ব্যাপারে দেশের জনগণ যথেষ্ট সচেতন। ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যে গোলযোগ এবং অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির পরিকল্পনা করেছে কিন্তু তাদের জানা উচিত যে, আমরা এরইমধ্যে তাদের পরিকল্পনা জেনে গেছি এবং তারা তাদের শয়তানি লক্ষ্য অর্জন করতে সফল হবে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here